*** The Consulate General will remain CLOSED on Wednesday, May 22 and Monday, May 27 on the occasion of BUDDHA PURNIMA and MEMORIAL DAY OF USA respectively *** UPDATED Instructions for NVR Endorsement (click here) *** This Mission's jurisdiction area is limited to Eight (08) US States: Alabama, Arkansas, Florida, Georgia, Louisiana, Mississippi, South Carolina, and Tennessee *** NVR endorsement is now available by mail service. For details, click here *** *** List of holidays 2024 ***



বাংলাদেশ ই-পাসপোর্ট

ই-পাসপোর্ট আবেদনের সাধারণ নির্দেশাবলীঃ

১. আবেদনকারীকে ই-পাসপোর্টের আবেদন আবশ্যিকভাবে অনলাইনে (https://www.epassport.gov.bd) করতে হবে।

২. ই-পাসপোর্ট আবেদনের ক্ষেত্রে কোনো ছবি সংযোজন অথবা কোনো কাগজপত্র সত্যায়নের প্রয়োজন হবে না।

৩. জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) অথবা ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদে (BRC) প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে।

৪. ই-পাসপোর্ট আবেদনের জন্য আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র এবং/অথবা ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্মনিবন্ধন সনদ অবশ্যই থাকতে হবে।

ক) আবেদনকারীর বয়স ১৮ বছরের নিচে হলে ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্মনিবন্ধন সনদ;

খ) আবেদনকারীর বয়স ১৮-২০ বছর হলে জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্মনিবন্ধন সনদ;

গ) আবেদনকারীর বয়স ২০ বছরের বেশি হলে জাতীয় পরিচয়পত্র, তবে বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশনে আবেদনের ক্ষেত্রে ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ গ্রহণযোগ্য হবে।

৫. আবেদনকারীর বয়স ১৮ বছরের কম হলে (যার জাতীয় পরিচয়পত্র নেই) নতুন পাসপোর্ট ইস্যুর ক্ষেত্রে পিতা বা মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর আবশ্যিকভাবে উল্লেখ করতে হবে;

৬. দত্তক/অভিভাবকত্ব গ্রহণের ক্ষেত্রে আবেদনপত্রের সাথে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ থেকে জারিকৃত আদেশের অনুলিপি দাখিল করতে হবে;

৭. আবেদনকারীকে কনস্যুলেটের অধিক্ষেত্রাধীন এলাকায় (ফ্লোরিডা, আলাবামা, আরকানসাস, জর্জিয়া, লুইজিয়ানা, মিসিসিপি, টেনেসি ও সাউথ ক্যারোলিনা অঙ্গরাজ্য) বসবাসরত হতে হবে।

৮. আবেদনের ধরণ অনুযায়ী প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত দলিলাদি আপলোড/সংযোজন করতে হবেঃ

ক) বাংলাদেশ সরকারের কর্মচারিদের ক্ষেত্রে সরকারি আদেশ/এনওসি/প্রত্যায়নপত্র/অবসরোত্তর ছুটির আদেশ/পেনশন আদেশ ইত্যাদি যা ইস্যুকারী কর্তৃপক্ষের নিজস্ব ওয়েবসাইটেও আপলোড করা থাকতে হবে

খ) বিবাহ সনদ/নিকাহনামা এবং বিবাহ বিচ্ছেদের ক্ষেত্রে তালাকনামা (যাচাইযোগ্য)

৯. ই-পাসপোর্টের আবেদনে বর্তমান ঠিকানা হিসেবে মিশনের অধিক্ষেত্রাধীন এলাকার কোনো ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানার কলামে বাংলাদেশের ঠিকানা উল্লেখ করতে হবে।

১০. প্রথমবারের মত পাসপোর্ট ইস্যুর ক্ষেত্রে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স প্রয়োজন বিধায় ইমার্জেন্সি কনটাক্টে বাংলাদেশের কোনো ঠিকানা (ফোন নম্বরসহ) দিতে হবে।

১১. আবেদনকারীর মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট থাকলে ই-পাসপোর্ট নতুন ইস্যুর ক্ষেত্রে সর্বশেষ মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অথবা ই-পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী ই-পাসপোর্ট প্রদর্শন/দাখিল করতে হবে, যা বায়োমেট্রিক তথ্য প্রদানের সময় স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে।

১২. আবেদনকারীর বয়স ০৬ (ছয়) বছরের কম হলে ৩আর (3R) সাইজের (ল্যাব প্রিন্ট গ্রে ব্যাকগ্রউন্ড) ছবি দাখিল করতে হবে।

১৩. পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে অথবা চুরি হলে দ্রুত নিকটস্থ পুলিশ স্টেশনে জিডি করতে হবে এবং নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদনের সময় হারিয়ে যাওয়া পাসপোর্টের ফটোকপি ও জিডির মূল কপি দাখিল করতে হবে।

১৪. অফিস চলাকালীন সময়ে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন সম্পন্নকারীদের অ্যাপয়েন্টমেন্ট অনুযায়ী পাসপোর্টের আবেদন ও বায়োমেট্রিক তথ্যাবলী গ্রহণ করা হবে এবং দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইস্যুকৃত পাসপোর্ট ডেলিভারি করা হবে। উল্লেখ্য, আবেদন গ্রহণের পর সাধারণত ৪-৬ সপ্তাহের মধ্যে পাসপোর্ট প্রস্তুত হয়ে থাকে (তথ্যগত ভুল না থাকলে এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে যথাসময়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সম্পন্ন হলে)।

১৫. প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট দাখিল করতে না পারলে কোনোভাবেই আবেদন গ্রহণ করা সম্ভব হবে না এবং সরকার নির্ধারিত ফি প্রদানের পর আবেদন বাতিল করে ফি ফেরতযোগ্য হবে না।

১৬. ই-পাসপোর্ট পোর্টালে ‘চেক স্ট্যাটাস’ লিংকে (https://www.epassport.gov.bd/authorization/application-status) প্রবেশ করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানা যাবে।


অনলাইনে আবেদন করার পর যে সকল ডকুমেন্ট নিয়ে কনস্যুলেটে আসতে হবেঃ

১. অনলাইন আবেদন শেষে অ্যাপয়েন্টমেন্ট প্রাপ্তির প্রিন্ট কপি (বারকোডসহ);

২. অনলাইন আবেদনপত্রের সারসংক্ষেপের বারকোডসহ প্রিন্ট কপি (অ্যাডবি অ্যাক্রোবেট ব্যবহার করে);

৩. সর্বশেষ মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অথবা ই-পাসপোর্টের মূল কপি (যদি থাকে);

৪. জাতীয় পরিচয়পত্র এবং/অথবা ১৭-ডিজিটের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদের কপি;

৫. ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ইস্যুকৃত ভ্যালিড আইডি কার্ডের মূল কপি;

৬. ’Consulate General of Bangladesh Miami’ বরাবর নির্ধারিত ফি (ছক অনুযায়ী) মানি অর্ডার, অথবা পোস্টাল অর্ডার, অথবা ব্যাংক সার্টিফাইড চেক; অথবা ক্রেডিট কার্ড (বণিক চার্জ প্রযোজ্য @৩%);

৭. তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় প্রমাণক;

৮. আবেদনপত্রের ধরণ অনুযায়ী অন্যান্য প্রমাণক;

৯. বৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানের প্রমাণকের মূল কপি (ভ্যালিড ভিসা/রেসিডেন্স পারমিট/গ্রিন কার্ড);

১০. আবেদনকারী যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে থাকলে আবশ্যিকভাবে দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদ (Dual Nationality Certificate)।


পাসপোর্টের ধরণ অনুযায়ী সরকার নির্ধারিত ফি (সরকাইর সকল চার্জসহ):

পাসপোর্টের ধরণ

ডেলিভারির ধরণ

ফি (মার্কিন ডলার)

সাধারণ আবেদনকারী

ছাত্রছাত্রী

৪৮ পাতা (৫ বছর মেয়াদ)

সাধারণ

১১০.০০

৩৩.০০

জরুরি*

১৬৫.০০

৪৯.৫০

৪৮ পাতা (১০ বছর মেয়াদ)

সাধারণ

১৩৭.৫০

৫৫.০০

জরুরি*

১৯২.৫০

৮২.৫০

৬৪ পাতা (৫ বছর মেয়াদ)

সাধারণ

১৬৫.০০

১৬৫.০০

জরুরি*

২২০.০০

২২০.০০

৬৪ পাতা (১০ বছর মেয়াদ)

সাধারণ

১৯২.৫০

১৯২.৫০

জরুরি*

২৪৭.৫০

২৪৭.৫০


*মিশন থেকে এনরোলমেন্টের ক্ষেত্রে সাধারণ এবং জরুরি আবেদনের মধ্যে পাসপোর্ট প্রাপ্তির সময়ের ব্যবধান কম থাকায় জরুরি আবেদন নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।